+8801404428804, +8801404428805  


Scroll Benemoy Blogs
  • Encouraged Investors: 10 thousand indexes and 3 to 5 thousand crore transactions soon

    Oct 31, 2021
    There is a sense of relief among investors from all walks of life in the capital market surrounding the London Road Show on November 4. Because since 2010, Hon'ble Prime Minister Sheikh Hasina has supported the capital market in various ways with financial, moral, and technical support, but she has not been directly present in any of the recent roadshows. This is the first time that the Prime Minister will present the investment situation of Bangladesh to the world by attending a roadshow on the capital market. Encouraged by the success of several previous roadshows, the Bangladesh Securities and Exchange Commission announced the presence of the Prime Minister at their next roadshow. The Prime Minister himself will be the chief guest at the Roadshow at the Churchill Auditorium at the Queen Elizabeth Center in London on Thursday, November 4, at 9 am local time. The event will be attended by top businessmen and investors from all over the UK and Bangladesh. The issue has already caused a stir among all stakeholders in the capital market, starting from small investors in Bangladesh, including DSE, CSE, CDBL, listed companies, and chamber associations. Everyone thinks that when the Prime Minister himself goes to the roadshow, there is no chance to go back. The capital market of Bangladesh will go a long way. Shibli Rubaiyat-ul-Islam, chairman of BSEC, the regulator of Bangladesh's capital markets, has started implementing his dream of going a long way with the future of the market from the very beginning by attending the London Roadshow. Today's topic is "Investor Summit: Bangladesh Capital Markets". Experts involved in the event are expecting huge investments from the London Roadshow from the United Kingdom and nearby European countries. The two-day roadshow is organized by the Bangladesh Securities and Exchange Commission. The entire event is in collaboration with the Bangladesh Investment Development Authority (BIDA) and the Bangladesh High Commission, London. The two-day roadshow courtesy of United Commercial Bank is co-sponsored by the British-Bangladesh Chamber of Commerce and Industries. Asked about the success of the roadshow, Asad Chowdhury FCMA, Bangladeshi director of the British-Bangladesh Chamber of Commerce and Industries and managing director of Expo Group, told "Our goal is not just the capital market, but the overall development of Bangladesh's economy." In this case, we are giving more importance to the capital market. Because it is now a growing market in our country. This is an easily accessible and convenient sector for investing money in all types of projects starting from megaprojects. Compared to many countries in the world, our capital market is still far behind. We have many opportunities to take it forward. He added that it is only a matter of time before the DSE index rises to 10,000 points in line with the vision and mission of the current chairman of the Securities Exchange Commission. 3 thousand crore rupees have not been released yet. We believe that in a very short period of time after the London Roadshow, the DSE's turnover will go from Rs 3,000 crore to Rs 5,000 crore. With this belief, we are going to London.

  • মুনাফায় এগিয়ে স্ট্যান্ডার্ড, পিছিয়ে সিটি এবং ফার্স্ট সিকিউরিটি ব্যাংক

    Nov 02, 2021
    শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকগুলো চলতি অর্থবছরেরর প্রথম তিন প্রান্তিক অর্থাৎ জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯ মাসের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী অধিকাংশ ব্যাংকের মুনাফা বেড়েছে। তবে মুনাফার দিক দিয়ে সর্বোচ্চ এগিয়ে আছে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক। অপরদিকে পিছিয়ে আছে সিটি ব্যাংক ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক। ডিএসইতে প্রকাশিত ব্যাংকগুলোর আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।
    ডিএসইর তথ্য মতে, শেয়ারবাজারে ৩২টি ব্যাংক তালিকাভুক্ত রয়েছে। এরমধ্যে ২৬টির মুনাফা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় বেড়েছে, কমেছে ৫টির এবং লোকসানে রয়েছে ১টি ব্যাংক।
    যেসব ব্যাংক মুনাফায় রয়েছে সেগুলোর মধ্যে এগিয়ে রয়েছে ডাচ বাংলা ব্যাংক। ব্যাংকটির চলতি অর্থবছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯ মাসে শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ৬ টাকা ২৫ পয়সা, দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে থাকা পূবালী ব্যাংকের ইপিএস হয়েছে ৪ টাকা ৫২ টাকা পয়সা এবং তৃতীয় অবস্থানে থাকা ইস্টার্ন ব্যাংকের ইপিএস হয়েছে ৪ টাকা ২১ পয়সা।
    এদিকে, চলতি অর্থবছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯ মাসে মুনাফার হারে সর্বোচ্চ এগিয়ে আছে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক। এ সময়ে ব্যাংকটির ইপিএস হয়েছে ২৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিলো ১১ পয়সা। আলোচ্য সময়ের ব্যবধানে ব্যাংকটির মুনাফা বেড়েছে ১৫৫ শতাংশ। মুনাফার হারের দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে প্রাইম ব্যাংক। ব্যাংকটির মুনাফা আগের চেয়ে ১২৫ শতাংশ বেড়েছে। এছাড়া, তৃতীয় অবস্থানে থাকা মার্কেন্টাইল ব্যাংকের মুনাফা আগের বছরের চেয়ে ১০৬ শতাংশ বেড়েছে।
    যেসব ব্যাংক পিছিয়ে পড়েছে সেগুলোর মধ্যে সিটি ব্যাংক এবং ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক প্রত্যেকের মুনাফার হারমাত্র ৩ শতাংশ করে বেড়েছে।
    যেসব ব্যাংকের মুনাফা কমেছে সেগুলো হলো: মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক এবং সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার ব্যাংক লিমিটেড।
    এছাড়া, আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক লোকসানে রয়েছে। আগের চেয়ে চলতি অর্থবছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯ মাসে ব্যাংকটির লোকসান হার ২১৩ শতাংশ।